অ্যামাজনের সর্বশেষতম কিন্ডল ডিভাইস, এখন এটি ১০ম জেনারেশন, নতুন এন্ট্রি-লেভেল মডেল। আপনি যদি কিন্ডল ওয়েসিস বা কিন্ডল পেপারহোয়াইটের জন্য বেশি ব্যয় করতে না চান তবে এটি আপনার জন্য।

ভারতে নিবেদিতপ্রাণ ই-বুক পাঠকদের জন্য যে ডিভাইসগুলি উপলব্ধ তার মধ্যে অন্যতম আমাজন কিন্ডল লাইনআপ সকলেরই প্রথম পছন্দ হয়ে উঠেছে। সর্বাধিক সাশ্রয়ী মূল্যের কিন্ডেলের দাম ৫,৯৯৯ টাকা, তবে এর একটি প্রধান ফিচারই নেই – ফ্রন্ট লাইট বা স্ক্রীনের আলো। এর অর্থ হ’ল সত্যিকারের বইয়ের মতো, আপনি কোনও প্রদীপ ছাড়া অন্ধকার ঘরে পড়তে এটি ব্যবহার করতে পারবেন না, কারণ স্ক্রিনটি আলোকিত হয় না। নতুন কিন্ডল (১০ম জেনারেশন)-এ এই সমস্যার সমাধান করা হয়েছে। এটিতে এখন ফ্রন্ট লাইট বা স্ক্রীনের আলো আছে এবং এটির দাম ৭,৯৯৯ টাকা। এবং এটিই বর্তমানে সর্বাধিক সাশ্রয়ী মূল্যের কিন্ডল হিসাবে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে।

কিন্ডল ১০ম জেনারেশন, এর আগের জেনারেশনের সাথে বেশ মিল আছে এবং বর্তমানে একই বিক্রি হচ্ছে। নতুন এই কিন্ডলটি কিছুটা ভারী (১৭৪গ্রাম বনাম ১৬১গ্রাম) এবং কিছুটা পাতলা (৮.৭মিমি বনাম ৯.১মিমি)। আমেরিকাতে কিন্ডল (১০ম জেনারেশন) অডিওবুক সাপোর্ট করে, তবে ভারতে নয়। বিষয়টি হতাশার হলেও সমস্যাজনক নয়।

কিন্ডল (১০ম জেনারেশন) – এ ৮ গিগাবাইট স্টোরেজ রয়েছে যেখানে আপনি হাজার হাজার বই রাখতে পারবেন। এটিতে 167ppi পিক্সেল ঘনত্বের একটি স্ক্রিন রয়েছে, যা কিন্ডল পেপারহোয়াইটের 300ppi এর থেকে অনেকটাই কম।

কিন্ডল (১০ম জেনারেশন) ডিজাইন
কিন্ডল (১০ম জেনারেশন) -এর একটি চমত্কার ও কার্যকরী নকশা রয়েছে। এটির স্ক্রিনের চারপাশে বড় ফ্রেম সহ একটি 6 ইঞ্চি ই-ইঙ্ক ডিসপ্লে রয়েছে। এটি কোনও সমস্যা নয় কারণ সকলে প্রায়শই এক হাত দিয়ে ডিভাইসটি গ্রিপ করতে পারবে। আপনার থাম্বটি ফ্রেমে থাকতে পারে এবং আপনি পরের পৃষ্ঠায় ফ্লিপ করতে স্ক্রিনটি দ্রুত ট্যাপ করতে পারেন। চার্জ দেওয়ার জন্য একটি মাইক্রো-ইউএসবি(micro-usb) পোর্ট সহ কিন্ডলের (১০ম জেনারেশন) গোড়ায় একটি পাওয়ার বোতাম রয়েছে।

কিন্ডল (১০ম জেনারেশন) দুটি রঙের রয়েছে – কালো এবং সাদা। আমরা পর্যালোচনার জন্য একটি কালো ইউনিট পেয়েছি এবং আমরা এটি কেস ছাড়া ব্যবহার করার পরামর্শ দেব না। আমরা কোনও ধূলিকণাযুক্ত পৃষ্ঠের উপরে ডিভাইসটি না রাখলেও এটি খুব দ্রুত নোংরা হয়ে যায়।

কিন্ডল (১০ম জেনারেশন) পারফরম্যান্স এবং ব্যাটারি লাইফ
যেকোন ইবুক পাঠকের জন্য, স্ক্রিন হল সবকিছু। যদি ডিসপ্লেটি ভাল না হয়, তবে ই-বুক রিডারটি তত্ক্ষণাৎ কম কাজে লাগবে। কিন্ডল পেপারহোয়াইটের তুলনায় কিন্ডল (১০ম জেনারেশন)-এর স্ক্রিন বেশ খানিকটা কম মানের হয়। ফন্ট, বইয়ের কভার এবং চিত্রগুলি (যেমন বইয়ের মানচিত্রগুলি) সব সময় দুর্দান্ত লাগে না।
সত্যি কথা বলতে কি, আমরা কিছুক্ষণ পড়ার পরে লো-রেজ্যুলেশন ফন্টগুলির সমস্যা খুব বেশী পাইনি, তবে কিন্ডল (১০ম জেনারেশন)-এ বইয়ের কভার এবং চিত্রগুলি দেখতে আমাদের সমস্যা মনে হয়েছে। আপনি যদি আগে কিন্ডল পেপারহোয়াইট বা কিন্ডল ওয়েসিস ব্যবহার করে থাকেন তবে কিন্ডল (১০ম জেনারেশন)-এর এই লো-রেজ্যুলেশন স্ক্রিনটি আপনাকে অনেক বিরক্ত করবে, কিন্তু এটি যদি আপনার প্রথম কিন্ডল হয় তবে আপনি এটি লক্ষ্য করতে পারবেন না।
কিন্ডল (১০ম জেনারেশন)-এ ফ্রন্ট লাইট বা সামনের স্ক্রীনের আলো কিন্ডল পেপারহোয়াইটের (আরও বেশি ব্যয়বহুল) মত পাঁচটির পরিবর্তে চারটি এলইডি(LED) ব্যবহার করা হয়েছে। এটিতে আমরা কোনও বাস্তব পার্থক্য দেখতে পাইনি। কোনও auto-brightness বৈশিষ্ট্য নেই, সুতরাং আপনাকে প্রয়োজন হলে এটি ম্যানুয়ালি অ্যাডজাস্ট করতে হবে। এমনকি অন্ধকার ঘরে কিন্ডল (১০ম জেনারেশন)-এ বই পড়তে আমরা অনেক স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেছি।

কিন্ডল (১০ম জেনারেশন) যদি ওয়্যারলেস(WiFi) বন্ধ করে দিনে ৩০ মিনিটের জন্য এবং ফ্রন্ট আলোটি 13-তে সেট করা ব্যবহার করা হয় তবে অ্যামাজনের দাবী অনুযায়ী একবার ফুল চার্জ করলে চার সপ্তাহের মতো ব্যাটারি লাইফ দেবে।

আপনি কেন কিনবেন?
অ্যামাজনের সবথেকে সস্তাতম কিন্ডল -এর সর্বশেষতম সংস্করণ হল ১০ম জেনারেশন, যা ফ্রন্ট লাইট যুক্ত এবং কম বাজেটে উপলব্ধ। এছাড়া ৮জিবি স্টোরেজে আপনি হাজার হাজার বইয়ের একটি ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরীর সঙ্গে নিয়ে পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তে যেতে পারবেন। আপনি যদি বইপোকা হয়ে থাকেন এবং রাত্রে বা দিনে কোনও বই না পড়ে থাকতে পারেন না, তবে এই নতুন কিন্ডলটি সেরা বাজেটের ই-বুক রিডার হিসাবে আপনি কিনতেই পারেন।

Kindle (10th Gen), 6″ Display with Built-in Light,WiFi (White)

Kindle (10th Gen), 6″ Display with Built-in Light, WiFi (Black)

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here